সব কিছু
facebook lakshmipur24.com
লক্ষ্মীপুর সোমবার , ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ , ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ , ১১ই সফর, ১৪৪২ হিজরি
লক্ষ্মীপুরে যুবকের মৃত্যুর আড়াই মাস পর হত্যা মামলা - Lakshmipur24.com

লক্ষ্মীপুরে যুবকের মৃত্যুর আড়াই মাস পর হত্যা মামলা

লক্ষ্মীপুরে যুবকের মৃত্যুর আড়াই মাস পর হত্যা মামলা

লক্ষ্মীপুরে রিপন নামের এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যুর আড়াই মাস পর হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। ২৩ আগস্ট লক্ষ্মীপুর সদর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন নিহতের বোন নাজমা আক্তার। এর আগে গত ৬ জুন নিজ বসত ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

রিপন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চর রমনী মোহন ইউনিয়নের চর আলী হাসান গ্রামের জয়নাল মোল্লা বাড়ির মৃত জালাল মোল্লার ছেলে। তিনি পেশায় একজন মুদি-দোকানি ছিলেন।

হত্যা মামলার এজাহারে সুত্রে জানা গেছে, অজ্ঞাতনামা আসামী করা হলেও মামলার বিবরণে সন্দেহজনক কয়েকজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। তারা রিপনের আপন চাচা, ফুফা ও ফুফুসহ নিকট আত্মীয়।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত ৬ জুন বেলা ১২টার সময় মৃত রিপনের চাচা শাহ আলম মোল্লা (৩৫), কামরুল মোল্লা (৩০), চাচী সাবিনা আক্তার (২০), ফুফা হারুন মাঝি (৫২) ও ফুফু কদবানু (৪৫) রিপনের ঘর থেকে সন্দেহজনকভাবে বের হয়ে যায়। এর পরপরই রিপনকে মৃত উদ্ধার করা হয়। মামলার স্বাক্ষী ফয়সাল হোসেন রিপনের ঘরে গিয়ে রিপনকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান। এ সময় রিপনের মৃতদেহ ঘরের আড়ার সাথে ঝুলানো এবং হাঁটুসহ নীচের অংশ খাটের সাথে লেগে ছিলো। পরে রিপনের মৃহদেহ তার দাদা জয়নাল মোল্লা নামিয়ে আনে। এ সময় মৃত রিপনের শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাতের চিহৃ দেখতে পায় বাড়ির লোকজন।

মামলার এজাহারে বাদি মৃত রিপনের বোন দাবি করেন, সন্দেহজনক আসামীরা তার ভাইকে অর্থের লোভে হত্যা করে থাকতে পারে। এতে তিনি উল্লেখ করেন, রিপন রাড়ির সামনে রিপানের যে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি ছিলো সেখান থেকে দোকানের মালামালসহ প্রায় সাড়ে ১০ লাখ টাকার মালামাল খোঁড়া যায়। তিনি অভিযোগ করেন, রিপন মারা যাওয়ার পর সন্দেহভাজন আসামীরা ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য মৃতদেহের ময়নাতদন্ত না করেই মৃত্যুর পরদিন ৭ জুন করব দেয়।

ঘটনার সময় সন্দেহভাজনরা এটিকে আত্মহত্যা বলে প্রচার করে। কিন্তু পরবর্তীতে ঘটনার আালামত থেকে বোঝা যায় এটি আত্মহত্যা নয়, পরিকল্পিত হত্যা। অভিযোগ রয়েছে, রিপনের ঝুলন্ত মৃতদেহ নামানো পর সদর থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ মৃতদেহ নিয়ে যায়। পরে রিপনের চাচা শাহ আলম ও স্থানীয় ইউপি সদস্য দুলাল মোল্লা রিপনের মৃতদেহের ময়না তদন্ত না করার জন্য থানায় লিখিত আবেদন করেন।

এর প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই তাড়াতাড়ি মৃতদেহটি দাফন করার উদ্যোগ নেয় সন্দেহভাজন অভিযুক্তরা। রিপনের পরিবারের অভিযোগ, রিপন হত্যাকান্ডের শিকার হয়ে থাকতে পারে এমন ঘটনা জানার পর এ ব্যাপারে মামলার উদ্যোগ নিলে সন্দেভাজন অভিযুক্তরা রিপনের বোনদের বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদান করে।

পরে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের সহযোগীতা নিয়ে এবং তাদের পরামর্শে আদালতে মামলা করেন রিপনের বোন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইউছুফ ছৈয়াল জানান, রিপনের মৃত্যুটি হত্যা না আত্মহত্যা তা রহস্যময়। তাই এলাকাবাসীর সাথে একমত পোষণ করে রিপনের মৃত্যুর রহস্য উন্মোচনে লাশ উত্তোলন করে ময়না তদন্তের দাবি জানান।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুর রহমান মিয়া বলেন, আদালত থেকে যে নির্দেশনা আসছে তার আলোকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সদর আরও সংবাদ

চন্দ্রগঞ্জে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মারামারি

লক্ষ্মীপুরে বিদ্যুৎ দিতে ৬০ লাখ টাকা আদায়কারী গ্রেফতার

পুলিশের আচরণে কোনোভাবেই মানুষ যেন কষ্ট না পায়: লক্ষ্মীপুরে ডিআইজি

নামের আগে ডাক্তার লেখায় লক্ষ্মীপুরে এক ব্যক্তির ৩০ হাজার জরিমানা

লক্ষ্মীপুরে নির্মাণাধীন ভবনের টয়লেট ট্যাংক পরিস্কার করতে গিয়ে দুই শ্রমিকের মৃত্যু

প্রস্তাবিত ভূমি আইন বাতিলের দাবি করেছে লক্ষ্মীপুরে আইনজীবিরা

লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন  
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত : লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর ( © ২০১২-২০২০)
সম্পাদক ও প্রকাশক: সানা উল্লাহ সানু, উপদেষ্টা সম্পাদক: রফিকূল ইসলাম মন্টু ।
রতন প্লাজা(৩য় তলা), চক বাজার, লক্ষ্মীপুর-৩৭০০।
ফোন: ০১৭৯৪-৮২২২২২, WhatsApp , ইমেইল: news@lakshmipur24.com