রামগঞ্জে হামলায় আহত যুবলীগ নেতা হাসপাতালে

নিজস্ব প্রতিনিধি:  লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সদস্য রিয়াদ হোসেনের ওপর অতর্কিত হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করা হয়েছে। রবিবার (২৬ আগষ্ট) বিকেলে উপজেলা পরিষদের সামনে এ কর্মসূচী পালন করা হয়। এসময় হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চাওয়া হয়।
স্থানীয় সূত্র জানায়, শনিবার রাতে পৌর শহরের এনসিসি ব্যাংকের সামনে আঙ্গারপাড়া এলাকার কাউছার হোসেন সহযোগীদের নিয়ে রিয়াদের ওপর এ হামলা চালায়। আহত রিয়াদ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা শহিদ উল্যার ছেলে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঘটনার সময় যুবলীগ নেতা রিয়াদ ও উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান মঞ্জু বন্ধুদের নিয়ে এনসিসি ব্যাংকের সামনে দাঁড়িয়ে ছিল। হঠাৎ কাউছার ১৪-১৫ সহযোগী নিয়ে এসে রিয়াদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় মঞ্জু বাঁধা দিতে গেলে নাজেহাল করা হয়। পরে স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হামলার ঘটনায় আহত রিয়াদের বাবা শহিদ উল্যা রবিবার রামগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

এদিকে আহত রিয়াদকে দেখতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমেদ। এসময় তারা রিয়াদের শারীরিক খোঁজ-খবর নেন।
অন্যদিকে হামলার প্রতিবাদ ও জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুর মোহাম্মদ খান, দপ্তর সম্পাদক আবু তাহের কারী, ধর্ম বিষয়ক সম্পদক নেছার আহম্মদ ভুইয়া, ইউপি সদস্য তোফাজ্জল হোসেন, মতিউর রহমান মানিক, কামাল হোসেন লিটন, বিল্লাল হোসেনসহ দলীয় নেতাকর্মীরা।
এ ব্যাপারে রামগঞ্জ থানার ওসি মোঃ তোতা মিয়া বলেন, হামলার ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা চলছে।