ফ্রান্সে বৃহত্তর নোয়াখালী কমিউনিটির আনন্দ ভ্রমন

ফ্রান্সের বৃহত্তর নোয়াখালী কমিউনিটির পক্ষ থেকে প্যারিস টু ডেউভিল আনন্দ ভ্রমন যাত্রা ২০১৩ পালিত গত ১৮ই আগষ্ট রবিবার অনুষ্ঠিত হয়।এবারের আনন্দ ভ্রমনের গন্তব্যস্থল বিশ্বের সবচেয়ে বড় সমুদ্র আটলান্টিকের তীর সংলগ্ন ফ্রান্সের ডেউভিল এর আটলান্টিক সী-বীচ। সকাল ৮ টায় প্যারিসের গারদোলইস্ট থেকে শুরু হলে ৩ ঘন্টার এই আনন্দ ভ্রমন বাসটি ফ্রান্সের ডেউভিল সী-বীচে এসে পৌঁছায় সকাল ১১ টায়। পবিত্র কোরআন তেলোয়াতে মাধ্যমে এই আনন্দ ভ্রমন যাত্রা শুরু হলে বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে সকল ভ্রমনকারীদের মাঝে আনন্দঘন পরিবেশ তৈরি করা হয়।যাত্রা পথে লটারিসহ সকল ভ্রমনপিয়াসী প্রবাসীদের ব্যক্তিগত জীবনের স্মৃতিচারণ এবং প্রবাস জীবনের নানা অনুভুতি নিয়ে বিভিন্ন আয়োজন করা হয়। অনেকে ব্যক্তিগত স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে প্রবাসে আসার পর পিতা কিংবা মাতাকেসহ পরিবারের সবচেয়ে কাছের মানুষগুলোকে চিরতরে হারানোই আবেগ তাড়িত হয়েপড়েন। এ সময় মোঃ সাইফুল ইসলাম এবং মিস সাইফুল ইসলাম তাদের সকলের মাঝে শ্রুতি মধুর কথা দিয়ে আরো বেশী আনন্দ দেওয়ার চেষ্টা করেন।আটলান্টিকের এই মনোমুগ্ধকর সী-বীচকে সকল ভ্রমন পিয়াসী প্রবাসীদের জীবনে স্মরণীয় করে রাখতে সেখানে পুরুষ মহিলা এবং শিশুদের মধ্যে ভিন্ন ভিন্ন গ্রুপে খেলাধুলাসহ নানা ধরনের আয়োজন করা হয়। পুরুষদের গ্রুপে ছিল প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, দোড় এবং মোরগের লড়াই প্রতিযোগীতা। মহিলাদের গ্রুপে ছিল সুই-সুতা, হাড়ি-ভাঙ্গা ও মার্বেল দোড় এবং শিশুদের গ্রুপে ছিল দোড় প্রতিযোগীতা। সন্ধা ৬ টায় ভ্রমন শেষে যাত্রাপথে প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাধ্যে পুরষ্কার প্রদান করা হয়।আনন্দ ভ্রমন যাত্রার বিশেষ আকর্ষন পুরুষ ও মহিলাদের মধ্যে গানে গানে লড়াইয়ের মাধ্যমে আগত সকল ভ্রমন পিয়াসী প্রবাসীদের জীবন থেকে একটি আনন্দঘন দিনের পরিসমাপ্তি ঘটে। রাত ১০ টায় আনন্দ ভ্রমন বাসটি প্যারিসে এসে পৌঁছায়। আনন্দ ভ্রমন ২০১৩ এর অনুষ্ঠান পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন মিস সাইফুল ইসলাম, এম এ রসিদ পাটোয়ারী এবং মাসুদুর রহমান। এই বছর এই যাত্রার আয়োজক ছিলেন প্যারিসে বাংলাদেশীদের পরিচিত বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব মোঃ সাইফুল ইসলাম এবং সাহাবুদ্দিন আহমেদ।