সব কিছু
লক্ষ্মীপুর রবিবার , ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং , ৫ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ , ১২ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

কমলনগরে জোয়ার ও বর্ষণে ৮টি বাজারসহ ১৬ গ্রাম প্লাবিত

কমলনগরে জোয়ার ও বর্ষণে ৮টি বাজারসহ ১৬ গ্রাম প্লাবিত

কমলনগর : পূর্ণিমার প্রভাবে টানা চারদিনের ভারি বর্ষণ ও মেঘনা নদীর তীব্র জোয়ারে লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে ৮টি হাটবাজারসহ ১৬ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। জোয়ারের পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ৩ থেকে ৪ফুট বেড়েছে। এতে উপজেলার মতিরহাট, নাছিরগঞ্জ বাজার, জনতা বাজার, সাহেবেরহাট, তালতলা বাজার, কাদির পান্ডিতেরহাট, লুধূয়া মাছঘাট বাজার পানির নিচে ডুবে গেছে। চরকালকিনি ইউনিয়নের ৮ গ্রামসহ চরফলকন, সাহেবেরহাট ও পাটারিরহাট ইউনিয়নের ১৬টি গ্রামের নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে মেঘনাপাড়ের উপকূলীয় গ্রামগুলোর শিশু ও নারীসহ প্রায় ১০ হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। এছাড়াও জোয়ারের পানিতে মতিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের শ্রেণি কক্ষ ডুবে যাওয়ায় বুধবার ওই বিদ্যালয়ের পাঠদান বন্ধ ছিল। জোয়ারের পানিতে বিভিন্ন গ্রাম ও হাট বাজার প্লাবিত হওয়ায় ওইসব বাজারের বেচাকেনায় ধস নেমেছে। আউস ধানের মাঠ,আমনের বীজতলা ও মাছের ঘের পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এদিকে জোয়ারের আঘাতে মেঘনা নদীর ভাঙন আরও তীব্র হয়েছে। উপজেলার চরকালকিনি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার মো. সাইফ উল্যাহ জানান, বেড়ি বাঁধ না থাকায় জোয়ারের পানিতে চরকালকিনি ইউনিয়নের প্রায় সবকয়টি গ্রাম প্লাবিত হয়ে পড়ে। পূর্ণিমার প্রভাবে জোয়ারের পানি আরও বেড়ে যাওয়ায় দুর্ভোগ বেড়েছে।
কমলনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বুধবার দুপুরে প্লাবিত গ্রাম ও হাট-বাজারগুলো পরিদর্শন করেছেন।

নদী ভাঙ্গন আরও সংবাদ

এক বছরে কমলনগর রক্ষা বাঁধে ৬ বার ধস, এলাকাজুড়ে আতঙ্ক আর ক্ষোভ

কমলনগরে আবারো তীব্র বেগে ভাঙছে মেঘনা

ভাঙন রোধে দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ না হলে বিলীন হবে কমলনগর

লক্ষ্মীপুরে ওয়াপদা খালের ভাঙনে হুমকির মুখে চার গ্রাম

কমলনগরে মেঘনার তীর রক্ষা বাঁধে ৪র্থ বারের ধস

লক্ষ্মীপুরে রহমতখালী নদীতে ভাঙন, হুমকির মুখে বাজারসহ বিস্তৃর্ণ এলাকা

লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন  
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর ডটকম ২০১২ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক: সানা উল্লাহ সানু
রতন প্লাজা (৩য় তলা) , চক বাজার, লক্ষ্মীপুর-৩৭০০
ফোন: ০১৭৯৪-৮২২২২২,ইমেইল: [email protected]