সব কিছু
লক্ষ্মীপুর মঙ্গলবার , ২৩শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং , ১০ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ , ১৮ই শাবান, ১৪৪০ হিজরী

কোরবানির জন্য রায়পুরের চরাঞ্চলে ছাগলের কদর

কোরবানির জন্য রায়পুরের চরাঞ্চলে ছাগলের কদর

 

তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় কোরবানি ঈদে গরুর চেয়ে চারটি ইউনিয়নের চরাঞ্চলের ছাগলের বিশেষ কদর বেড়েছে। চরাঞ্চল বলে খ্যাত মোল্লার হাট, খাসের হাট, হায়দরগঞ্জ বাজার, আখন হাটসহ ১৫টি বাজারে ছাগল ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য বিখ্যাত। এসব বাজারগুলোতে কোরবানির ঈদ বাজার ছাড়াও সারা বছর ছাগল বিক্রি হয়ে থাকে। ঈদের আর মাত্র দুই দিন বাকী থাকায় এ ছাগল বিক্রিতে বাজারও বেশ জমে ওঠেছে। এছাড়াও রায়পুর নতুন বাজারে সাপ্তাহিক হাটের দিন সোম ও শুক্রবার ছাগলের জমজমাট বাজারও বসে।

সরেজমিন দেখা যায়, রায়পুর উপজেলায় ছোট-বড় ৩৫টি বাজার রয়েছে। কোরবানির বাজার উপলক্ষে খাসের হাট, চরবগা, চরকাছিয়া, চরইন্দুরিয়া, চর ঘাসিয়া, ও পার্শবর্তী হাইমচর ও বরিশালের মুলাদি থেকে কয়েক হাজার ছাগল বিক্রির জন্য নিয়ে এসেছেন। বিভিন্ন স্থান থেকে আসা লোকজনও গরুর চেয়ে নিজেদের পছন্দমতো ছাগল কিনছেন বেশী। বিক্রি ভালো হওয়ায় ছাগল পালনকারী ও ব্যবসায়ীরাও বেশ খুশি। বিশেষ করে হায়দরগঞ্জ, মোল্লার হাট ও খাসেরহাট এলাকার ব্যবসায়ীরা কোরবানি উপলক্ষে সবচেয়ে বেশী ছাগল এনে ছাগল মজুদ করেছেন।

পাইকারি ছাগল ব্যবসায়ী আলমগীর, জাগাঙ্গীর ও ফারুক জানান, রায়পুরের বাইরে বিশেষ করে লক্ষ্মীপুর, চৌমুহনী, ফেনী, চাঁদপুর ও কুমিল্লাসহ বিভিন্ন স্থান থেকে আসা অর্ধশতাধিক ব্যবসায়ী রায়পরের ১২টি বাজারে চরাঞ্চলের ছাগল কিনতে আসেন।

স্থানীয় ছাগল পালকারি মাজেদ ও জয়নুদ্দিন মাঝি জানান, কোরবানি উপলক্ষে এবার গরু কোরবানী দেয়া সম্ভব না হওয়ায় কমদামে চরের হাটে এসে ছাগল কিনেছি। আমাদের মত বেশীর ভঅগ নিন্ম মধ্য বিত্ত পরিবারের লোকজনও ছাগল কিনতে এসছেন।

লক্ষ্মীপুরের চর রুহিতা এলাকার মমিন ভ’ঁইয়া জানান, তিনি মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে উপহার দেওয়ার জন্য ১২ হাজার ৬ শ টাকা দিয়ে একটি ছাগল কিনেছেন। অন্যান্য বাজারের চেয়ে চরাঞ্চলের ছাগলের দাম কিছুটা কম। চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার আলোনীয়া গ্রামের মোখলেছ মৈশাল জানান, মোল্লার হাটে অনেক ছাগল থাকায় দেখেশুনে এবং দর যাচাই করে ধীরে সুস্থে কেনা যায়। এছাড়া ছাগল প্রচুর ছাগল থাকায় পছন্দ করতেও কোনো সমস্যা হয় না।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামান বলেন,রায়পুর উপজেলার চারটি ইউনিয়নের চরাঞ্চলের ছাগল পালনকারীরা মূলত ব্ল্যাাকবেঙ্গল নামের দেশীয় জাতের ছাগল বেশি পালন করেন। এই জাতের ছাগল বছরে দুবার বাচ্চা দেয়। বছরে প্রতিবার ২-৩টি বাচ্চা দিয়ে থাকে। ব্লাকবেঙ্গল জাতের ছাগল পালন অন্য জাতের ছাগলের চেয়ে বেশি লাভজনক।

লক্ষ্মীপুর আরও সংবাদ

রায়পুরে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে শিশুদের ক্লাশ

লক্ষ্মীপুরে বাস চাপায় নারী নিহত

লক্ষ্মীপুরে ২১৪ প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর মাঝে উপবৃত্তি প্রদান

রামগতিতে ব্লাড ডোনেশান ক্লাবের উদ্যোগে ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্প

রামগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে দরিদ্রের চাল আত্মসাতের অভিযোগ

লক্ষ্মীপুরে শনিবার মধ্যরাত থেকে ২৪ ঘন্টা যে সকল যানবাহন চলবে না

লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন  
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর ডটকম ২০১২ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক: সানা উল্লাহ সানু
রতন প্লাজা (৩য় তলা) , চক বাজার, লক্ষ্মীপুর-৩৭০০
ফোন: ০১৭৯৪-৮২২২২২,ইমেইল: [email protected]