লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের নামে তৈরি করা ভুয়া ফেসবুক পেইজ ও প্রতারণা থেকে সাবধান

নিজস্ব প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের স্থানীয় অনলাইন পত্রিকা লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের নামে খোলা হয়েছে একটি ফেক ফেসবুক পেইজ। এ পেইজে অধিকাংশ সময়েই আপলোড করা হচ্ছে নানা কুরুচিপূর্ণ লেখা, ছবি, রাজনৈতিক বিভিন্ন দলের প্রচার, গুজব এবং কুৎসা রটানো হচ্ছে। ফলে বিভ্রান্ত হচ্ছে পাঠকসহ সাধারণ মানুষ। লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে কিছু চক্র মহল এ পেইজকে নিজেদের প্রচারণা ও চাঁদাবাজির কাজে ব্যবহার করছে।

সম্প্রতি এই বিষয়টি লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষের নজরে এসেছে

Lakshmipur24.com লক্ষীপুর২৪.কম 

নামের সে পেইজ। ভুয়া এ পেইজে ৮৮২টি লাইক আছে। ভুয়া এ পেইজের এডমিন হিসেবে আছেন Nurullapur Lakshmipur  

 

নামের আরো একটি ফেক আইডি। লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের পক্ষ থেকে ওই পেইজ এবং এডমিন আইডিতে এসএমএসের মাধ্যমে যোগাযোগ করা হলে শনিবার (১৮ আগষ্ট) বিকেল ৫.১৭ টায় ০১৫৩৩ ২৪৪৭৫২ এবং ০১৫৩৭ ৫০১৪৮৪ নাম্বার থেকে লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের সম্পাদক সানা উল্লাহ সানু কে হুমকি প্রদান করেছে।

লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের নামে তৈরি করা ফেক ফেসবুক পেইজের ছবি

 

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এ পেইজ থেকে কেউ প্রতারিত হলে বা রাষ্ট্র বিরোধি কোন পোস্ট করা হলে এর দায়দায়িত্ব ওই ভুয়া পেইজের এডমিন কে নিতে হবে।

 

অন্যদিকে লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, তাদের মূল ওয়েবসাইট www.lakshmipur24.com এর প্রথম পেইজে দেয়া https://www.facebook.com/lakshmipur24 নামের এ পেইজটি ছাড়া আর কোন ফেসবুক পেইজ বা আইডি পরিচালনা করা হয় না।

 লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের মূল পেইজে ১ লাখ ৪ হাজারের বেশি লাইক আছে। এবং লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের ওয়েবসাইটের সাথে পেইজটি সংযুক্ত করা আছে। 

এ পেইজে প্রকাশিত প্রতিটি সংবাদ লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের নিজস্ব ওয়েবসাইটে  প্রকাশিত সংবাদের লিংক মাত্র। তাতে সংবাদ এবং জনগুরুত্বপূর্ণ সমস্যা ছাড়া অন্য কোন পোস্ট বা রাজনৈতিক প্রচারণা করা হয় না। তাই পত্রিকার পাঠক ও ফেইসবুক পেইজ অনুসারীদের এসব ফেক পেইজ পরিহার করা ছাড়াও ওই ভুয়া পেইজটির বিরুদ্ধে রিপোর্ট করার জন্য লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর সম্মানিত পাঠকবৃন্দের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

আসল পেইজ চিনবেন কিভাবে ?

যে কোন মিডিয়ার মূল ওয়েব সাইটের সাথে লিংক করা ফেসবুক, টুইটার এবং ইউটিউব চ্যানেলগুলো ওই মিডিয়ার আসল সামাজিক চ্যানেল। তাছাড়া ফেসবুক থেকে নীল টিক দেয়া বা ভেরিফাইড পেইজগুলো আসল পেইজ।