যে কারণে লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগের ৪টি কমিটি স্থগিত

নিজস্ব প্রতিনিধি: প্যাডে লিখিত ও ফেসবুকে কমিটি ঘোষণার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগের ৪টি সাংগঠনিক শাখার কমিটি স্থগিত করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। কমিটিগুলো হচ্ছে, রামগঞ্জ ও রায়পুর পৌর ছাত্রলীগ, চন্দ্রগঞ্জ থানা ও কফিল উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগ। রোববার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিটি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ওয়েব সাইটে প্রকাশ পায়।

একই সাথে ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র পরিপন্থী কাজের জন্য লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককের বিরুদ্ধে কেন সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে  না তা জানাতে আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে কারণ দর্শানো নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এ ঘটনাগুলো গত ১৬ ঘন্টার ব্যবধানে ছাত্র সংগঠন, ফেসবুক ও রাজনৈতিক অঙ্গনে অনেক কে কৌতুহলী করেছে।

জানা যায়, রোববার সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুন্নবী সোহেল ও সাধারণ সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাস চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগ, কফিল উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগসহ ৪টি কমিটি অনুমোদন করেন। এর কিছুক্ষণ পরই কমিটি গুলো ফেসবুকে প্রচার পায়। কিন্তু তার কিছু সময় পর রাতেই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতা ৪টি কমিটিই স্থগিত করেন এবং জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দকে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রেরণ করেন।

ঘন্টার কারণ জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র এবং জেলা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর কে জানায়, পদবি বঞ্চিত কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা কমিটি অনুমোদনের পর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দকে বিষয়টি অবহিত করেন। তাছাড়া সাংগঠনিক বিধিবর্হিভূত ভাবে কমিটি অনুমোদন দেওয়ায় উক্ত কমিটি স্থগতি করার জন্য অনুরোধ করেন তারা। যার প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ দ্রুত এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছেন।

কমিটি স্থগিত ঘোষণার সাথে সাথে ছাত্রলীগের ত্যাগী নেতাদের হাসিমুখ দেখা গেছে। অনেকে এটা কে সাংগঠনিক বিজয় হিসেবে দেখছেন।