অনলাইন ক্যাম্পাসে সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ দিয়ে আনুষ্ঠানিক সনদ দিচ্ছে ‘পিআইবি’

সানা উল্লাহ সানু: অনলাইন ক্যাম্পাসের মাধ্যমে সাংবাদিকতা শেখানোর প্রশিক্ষণ শেষ করে কোর্স উর্ত্তীন শিক্ষার্থীদেরকে আনুষ্ঠানিক সনদ দিতে যাচ্ছে প্রেস ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ-পিআইবি। বৃহস্পতিবার (১২ জুলাই) সকালে ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তন ‘আইডিইবি’ ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করা হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। এ সময় কোর্স উর্ত্তীন ৬শ ৬৯ শিক্ষার্থী আনুষ্ঠানিক ভাবে সনদপত্র পাবে। পিআইবি সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। বিভিন্ন মাধ্যমে খবর নিয়ে জানা যায়, বাংলাদেশের ইতিহাসে এটিই হচ্ছে অনলাইন শিক্ষা ব্যবস্থার প্রথম স্বীকৃতি।

পিআইবি’র অফিস সূত্র জানায়, তাদের প্রতিষ্ঠানের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বিকেন্দ্রীকরণের লক্ষ্যে ‘পিআইবি’ গত বছরের আগষ্ট মাসে অনলাইনে চালু করে সাংবাদিকতা শেখার দুটি প্রশিক্ষণ কোর্স। যার একটি ছিল ‘সাংবাদিকতায় বেসিক কোর্স’ অপরটি ‘টেলিভিশন সাংবাদিকতা কোর্স’। অনলাইন ক্যাম্পাসের মাধ্যমে কোর্স দুটিতে ২ হাজার ৬শ ২৪ শিক্ষার্থী প্রশিক্ষণ কার্যক্রম গ্রহন করে। ৪ মাস ব্যাপি এ কোর্স শেষে ডিসেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে চুড়ান্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে দুকোর্সে ৬শ ৬৯ শিক্ষার্থী উর্ত্তীন হয়। যার মধ্যে বেসিক জার্নালিজম কোর্সে উর্ত্তীন শিক্ষার্থী সংখ্যা ৫শ ৭০জন।

অন্যদিকে ‘উন্নয়ন সাংবাদিক’ এবং ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা’ শিরোনামে বর্তমানে আরো দুটি কোর্স চলছে বলে জানায় ‘পিআইবি’।

জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই)এর ই-লার্নিং প্লাটফর্ম তথা অনলাইন ক্যাম্পাস ‘মুক্তপাঠ’এর আওতায় পিআইবি’ এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। গত বছরের ২৯ আগষ্ট পিআইবি অডিটরিয়ামে সাংবাদকিতা শেখার অনলাইন এ কোর্স গুলোর উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

অনলাইনে সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ফাইল ছবি

ওদিন জনাব হাসানুল হক ইনু বলেছিলেন, ‘এই কোর্সের মাধ্যমে সাংবাদিকদের দক্ষতার উন্নয়ন হবে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের সংবাদকর্মীরা এই কোর্সে অংশ নিয়ে ডিজিটাল সাংবাদিক হিসেবে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবেন।’

এদিকে অনলাইনে সাংবাদিকতার এ কোর্সগুলোর পাঠ্যসূচী প্রনয়ণ করে ‘পিআইবি’ এর বিশেষজ্ঞ প্যানেল এবং ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিশেষজ্ঞ শিক্ষকদের সমন্বয়ে গঠিত প্যানেল।

এ কোর্সে অংশ গ্রহন করে সফলভাবে উর্ত্তীণ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শায়েম কাজল এবং লক্ষ্মীপুরের ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক সারোয়ার মিরন জানান, বিগত দিনে সাংবাদিকতায় সরাসরি কোন প্রশিক্ষণ পাননি তারা। ‘পিআইবি’র এ অনলাইন প্রশিক্ষণ কোর্স তাদের নিকট সরাসরি শ্রেনী কক্ষে বসে কোর্সে অংশ গ্রহনের মতো মনে হয়েছে। এ দু শিক্ষার্থী আরো জানান, সরাসরি কোন ক্লাশ করলে যা যা করতে হতো ওখানো সেগুলো সঠিক এবং নির্ভূলভাবেই করতে হয়েছে। এ দু শিক্ষার্থী কোর্সগুলো আজীবন চালু রাখার দাবি জানান।

অন্যদিকে একটি জাতীয় দৈনিকের লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি আজিজুর রহমান আজম জানান, “টেক্সট ভিত্তিক লেকচার সীট, মাল্টিমিডিয়া পেজেন্টেশান, ভিডিও টিউটোরিয়াল, লাইভ ক্লাস, এ্যাসইনমেন্ট, প্রশ্নোত্তর পর্বে যোগদান ইত্যাদি করতে করতে মনে হয়েছিল আমি যেন আবার ছাত্র হয়ে গেলাম।
তিনি আরো জানান এ কোর্সের সফল দিক হচ্ছে, ওখানে নকল করে বা না পড়ে পরীক্ষা দেয়ার কোন সুযোগই নেই। সুতরাং অনলাইনে পাস করতে হলে অবশ্যই পড়তে হবে। তিনি অনাগত দিনে এ ধরনের কোর্স সংখ্যা বৃদ্ধি করার দাবি জানান।