২৪০ কিলোমিটার উপকূলীয় বাঁধ নির্মাণের প্রস্তাব অর্থমন্ত্রীর

নাব্যতা বাড়ানো, ভাঙন হ্রাস ও শুষ্ক মৌসুমে পানি সরবরাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০২১ সালের মধ্যে ৪৭০ কিলোমিটার নদী ড্রেজিংয়ের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। জাতীয় সংসদে গতকাল বৃহস্পতিবার বাজেট প্রস্তাবে তিনি এ কথা বলেছেন। বাজেট প্রস্তাবনায় অর্থমন্ত্রী আরো বলেন, ‘সেচ সুবিধা সম্প্র্রসারণের জন্য ৫৩০ কিলোমিটার সেচ খাল খনন ও পুনঃখনন এবং ৮৬০টি স্ট্রাকচার নির্মাণ ও মেরামত, তিনটি ব্যারাজ ও রাবার ড্যাম নির্মাণ, বন্যা, লবণাক্ততা ও জলাবদ্ধতা হ্রাসের জন্য ২৪০ কিলোমিটার বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও উপকূলীয় বাঁধ নির্মাণ ও মেরামত, ৭১০টি বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও নিষ্কাশন অবকাঠামো নির্মাণ ও মেরামত, এক হাজার ৫২৫ কিলোমিটার নিষ্কাশন খালখনন ও পুনঃখনন কাজ সম্পন্ন করব। এ ছাড়া ছয়টি আড়ি বাঁধ নির্মাণের মাধ্যমে সাগর থেকে ১১০ একর ভূমি পুনরুদ্ধারের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।’

মন্ত্রী মুহিত বলেন, রামসার গাইড অনুসরণ করে দেশের সব জলাভূমির তালিকা প্রণয়ন করা হচ্ছে। এ ছাড়া জলাভূমিগুলোর ব্যবস্থাপনা কাঠামো নির্মাণের প্রভাব মূল্যায়নের জন্য একটি সমীক্ষা শেষ করা হয়েছে। এতে পরিবেশবান্ধব অবকাঠামো নির্মাণের দিকনির্দেশনা পাওয়া যাবে।