বাবাকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় লক্ষ্মীপুরের সে যুবলীগ নেতাকে দল থেকে বহিস্কার

নিজস্ব প্রতিনিধি,রায়পুর: লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মা, বাবা ও বোনকে মারধর করার অপরাধে যুবলীগ নেতা আব্দুল কাহার সেলিমকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। শনিবার জেলা যুবলীগের সভাপতি সালাউদ্দিন টিপুর নির্দেশে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মঞ্জুর হোসেন সুমন এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ওই নেতাকে বহিস্কার করেন। আব্দুল কাহার সেলিম কেরোয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি ও মোল্লার হাট এলাকার তাজল ইসলামের ছেলে। বৃহস্পতিবার (৫জুলাই) ‘লক্ষ্মীপুরে বাবাকে পিটিয়ে আহত করলেন যুবলীগ নেতা’ এই শিরোনামে অনলাইন গনমাধ্যম লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোর ও দৈনিক যুগান্তরে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার ফলে উপজেলা যুবলীগ তাকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেন। এ সত্য সংবাদ প্রকাশ করায় আহত পিতাসহ পরিবার গনমাধ্যম দুটির কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এবং সংগঠন থেকে ওই নেতাকে বহিস্কার করায় এলাকাবাসীর মাঝে সন্তোষ বিরাজ করছে।

উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও জেলা পরিষদের সদস্য মঞ্জুর হোসেন সুমন জানান, এ ঘটনাটি আমরা জানতাম না। লক্ষ্মীপুরটোয়েন্টিফোরের মাধ্যমে ঘটনাটি আমরা অবহিত হই। তাই জেলা যুবলীগের সভাপতির নির্দেশে মা বাবা ও বোনকে মারধর করার অপরাধে সংগঠন ও পদ থেকে তাকে বহিস্কার করা হয়েছে।

যুবলীগ নেতা আব্দুল কাহার সেলিম গত বুধবার জাতীয় পরিচয় পত্র বৃদ্ধ পিতার কাছে না পেয়ে তাকেসহ মা ও বোনকে বেদম মারধর করে মারাত্মক জখম করে। আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন বৃদ্ধ তাজল ইসলামকে সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করেন এবং বিচার চেয়ে ছেলে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। এতে ওই দিন সন্ধায় অভিযোগের ভিত্তিতে আব্দুর কাহার সেলিমকে পুলিশ আটক করে এবং ভবিষ্যতে মারধর করবে না মর্মে থানায় মুচলেকা দিলে রাত ২টায় থানা থেকে গণ্যমাণ্য ব্যাক্তিদের অনুরোধে মুক্তি পায়।