লক্ষ্মীপুরে গোলাগুলিতে ডাকাতি মামলার আসামি নিহত

নিজস্ব প্রতিনিধি:  লক্ষ্মীপুরে চন্দ্রগঞ্জের গনিপুর এলাকা থেকে নুরুল আলম ওরফে নুরু নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সাংবাদিকদের কাছে পুলিশ বলেছে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ডাকাত-পুলিশ গোলাগুলিতে নুরুল আলম নিহত হয়েছে। পুলিশ বলেছে নিহত ব্যক্তি ডাকাত দলের সদস্য ছিল। এ সময় রফিক উল্যাহ ও রুবেল নামে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়। আহতদের সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। তবে এ বিষয়ে নিহত ব্যক্তির পরিবারের কোন সদস্যের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, একটি বন্দুক, ৫ রাউন্ড গুলি ও ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার (২৭ এপ্রিল) রাত সাড়ে তিনটার দিকে। নিহত নুরুল আলম নুরু সদর উপজেলার পূর্ব জাফরপুর এলাকার সামছুদ্দোহার ছেলে।

পুলিশ জানায়, চন্দ্রগঞ্জের গনিপুর এলাকায় শুক্রবার রাত সাড়ে তিনটার দিকে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল একদল ডাকাতদল। এ খবর পেয়ে চন্দ্রগঞ্জ থানা পুলিশ ডাকাতদের ধরতে ওই এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়েঁ। পুলিশও পাল্টা ১৫ রাউন্ড গুলি ছুড়েঁ। এতে নুরুল আলম নুরু গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে মারা যায়। এ সময় আহত হয় দুই পুলিশ সদস্য।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো. জাফর আহম্মদ জানান, ডাকাত-পুলিশ গোলাগুলিতে ডাকাত নুরু নিহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র,গুলি ও ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়। নিহত  নুরু পুলিশের তালিকাভূক্ত আসামি, তার বিরুদ্ধে চন্দ্রগঞ্জ থানাসহ বিভিন্ন থানায় ৬টি ডাকাতির মামলা রয়েছে।