লক্ষ্মীপুরের ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জিহাদী ঢাকায় গুলিবিদ্ধ

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজধানীর বংশালের সিদ্দিকবাজার এলাকায় লক্ষ্মীপুরের বশিকপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জিহাদি (৫৫) গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (ঢামেক) ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৯ মে) রাত সাড়ে ১১টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া বলেন, ‘তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহত চেয়ারম্যানের সঙ্গে হাসপাতালে থাকা মো. রিপন জানান, ‘চেয়ারম্যান আবুল কাশেমের বাম পায়ের উরুতে গুলি লেগেছে। গত ৩/৪ দিন আগে তিনি ঢাকার শনির আখড়ায় আসেন।

সেখান থেকে তিনি কেরানীগঞ্জের আঞ্জুমানে মইনিয়া এতিমখানার জন্য সিদ্দিকবাজারে এলাকার ব্যবসায়ীদের কাছে টাকা কালেকশনের জন্য যান। রাত ১১টার দিকে কালেকশন শেষে মা ট্রেডার্স নামের কিরনের দোকানে বসা ছিলেন। রাত সাড়ে ১১ টার দিকে এক তরুণ এসে তাকে লক্ষ্য করে গুলি করে পালিয়ে যায়। পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে আসি।

এদিকে জানা যায়, ২০১৪ সালে পুলিশ সদর দপ্তরে তদবির করতে গিয়ে  গ্রেফতার হন আবুল কাশেম জিহাদী। তখন তার বিরুদ্ধে পাঁচটি হত্যাসহ বেশ কয়েকটি মামলা ছিল। যে গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল দত্তপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান নূর হোসেন শামীম, দত্তপাড়ার আবু তাহের, বশিকপুরের নন্দীগ্রামের মোরশেদ আলম, করপাড়ার মনির হোসেন, উত্তর জয়পুরের সেলিম ভূইঁয়া ও কামাল হোসেন হত্যা মামলা। পুলিশসহ স্থানীয় সূত্রগুলো জানায়, আবুল কাশেম জিহাদী লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতা এবং বশিকপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। কাশেম জিহাদী এক সময় জামায়াত ইসলামীর কর্মী ছিলেন। পরে তিনি  আওয়ামী লীগে যোগ দেন। তাঁর আসল নাম আবুল কাশেম। ১৯৯৭ সালে তিনি  ‘জিহাদী’ উপাধি পান।