চার উপজেলাই আওয়ামীলীগ প্রার্থী বিজয়ী

নিজস্ব প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের রামগতি,রামগঞ্জ,রায়পুর ও সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

রামগতি উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত অধ্যাপক আবদুল ওয়াহেদ (দোয়াত-কলম) ৩০ হাজার ৮১২ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন (মোটরসাইকেল) পেয়েছেন ১৯ হাজার ৫৩০ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী আহাম্মদ উল্যাহ সেলিম মাস্টার (টিউবওয়েল) ৪২ হাজার ২শ ৯৩ এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আ. লীগ সমর্থিত প্রার্থী মোজাহিদুল ইসলাম দিদার (চশমা) ২৪ হাজার ৩শ ৮ ভোট পেয়েছেন।

অপরদিকে, নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিকল্পধারা সমর্থিত প্রার্থী মর্জিনা বেগম (হাঁস) ৪৮ হাজার ১শ ১৩। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জেএসডি সমর্থিত প্রার্থী বর্তমান নারী ভাইস চেয়ারম্যান শাহনাজ কাজল (ফুটবল) ১৯ হাজার ৫শ ৩৮ ভোট পেয়েছেন।

একটি পৌরসভা ও আটটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত রামগতি উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৪২ হাজার ৪৬২ জন। এদের মধ্যে ৭১ হাজার ১৯ জন পুরুষ এবং ৭১ হাজার ৪৪৩ জন নারী ভোটার রয়েছেন।

রামগঞ্জ উপজেলায় চেয়াম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত আ ক ম রুহুল আমিন (হেলিকপ্টার) বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৯০ হাজার ৫৩৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত ভিপি আবদুর রহিম (ঘোড়া) পেয়েছেন ২১ হাজার ৭৭৭ ভোট। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দেওয়ান বাচ্চু ৮৫হাজার ৯শ ৩৬ ভোট পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াতের আমিনুল ইসলাম মুকুল পেয়েছেন ২২হাজার ভোট। জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদিকা সুরাইয়া আক্তার শিউলি ৮০হাজার ২২ ভোট পেয়ে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত ফেরদৌসী আক্তার বিউটি মজুমদার পেয়েছেন ২৮হাজার ৩শ১২ ভোট।

আটটি ইউনিয়ন এবং একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত রামগঞ্জ উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৮৫ হাজার ৬৫৯ জন।

রায়পুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আলতাফ হোসেন হাওলাদার (মোটরসাইকেল) বেরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। ৭০ কেন্দ্রের ফলাফলে তিনি পেয়েছেন ৫৪ হাজার ৪৯৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী মো. হাবিবুর রহমান মিন্টু (আনারস) পেয়েছেন ২২ হাজার ৮৭৫ ভোট।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের এ্যাড. আবুল কালাম আজাদ (টিয়াপাখি) পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৫৯৮ ভোট। তার নিকটমত প্রতিদন্ধি বিএনপির সমর্থিত সফিকুর রহমান (তালা চাবি) পেয়েছেন ৩০ হাজার ৫০৩ ভোট। জামায়াতের সমর্থিত শাহজাহান পাটোয়ারী (চশমা) পেয়েছেন ২০ হাজার ৪২৭ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের সমর্থিত হাজী মাজেদা বেগম (প্রজাপতি) পেয়েছেন ৪৭ হাজার ২৩৮ ভোট। তার নিকটমত প্রতিদন্ধি জামায়াতের সমর্থিত মারজাহান আক্তার (হাস) পেয়েছেন ২৬ হাজার ৯২৫ ভোট। বিএনপি সমর্থিত ফেরদৌসী বেগম (কলস) পেয়েছেন ১৫ হাজার ৬৭৭ ভোট পেয়েছেন।
সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও রায়পুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে, ভোট চলাকালে এ উপজেলার ঝাউডোগী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দক্ষিণ উদমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। ভোটের ব্যবধান বেশি হওয়ায় এ দুই কেন্দ্রে পুনরায় আর ভোটগ্রহণ করা হবে না। ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত রায়পুর উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৭৩ হাজার ২২২।

লক্ষ্মীপুর সদরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত একেএম সালাহ উদ্দিন টিপু (দোয়াত-কলম) বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ২লাখ ৮৩ হাজার ৪শ ৪৯ ভোট। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মাহমুদুল করিম দিপু (ঘোড়া) পেয়েছেন ১৭ হাজার ৪শ ৩৭ ভোট। লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ২৫ হাজার ৮শ ৭৫ জন। এদের মধ্যে ২ লাখ ১০ হাজার ৭শ ৮৭ জন পুরুষ এবং ২ লাখ ১৫ হাজার ৮৮ জন নারী ভোটার রয়েছেন।