দিনাজপুরের কলেজ ছাত্রী লক্ষ্মীপুরে উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিনিধি: দিনাজপুরের কতোয়ালী থেকে নিখোঁজ হওয়ার এক মাস পর কলেজ ছাত্রী মিতু আক্তারকে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরের থেকে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (১২ জুন) দুপুরে উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের রাখালিয়া বাজারের পাশে হোসেন আলী বেপারী বাড়ী থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার ও তার প্রেমিক তানজিন আহম্মেদ শান্তকে আটক করা হয়। নিখোঁজ ছাত্রী মিতু আক্তার দিনাজপুরের কতোয়ালী উপজেলার বন্ধুগাঁও ইউনিয়নের বোচাগঞ্জ গ্রামের মজিবুল হকের মেয়ে ও দিনাজপুর সরকারি কলেজে অনার্স ২য় বর্ষের ছাত্রী এবং অভিযুক্ত তানজিল আহম্মেদ শান্ত রায়পুর উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের রাখালিয়া বাজারের পাশে হোসেন আলী বেপারী বাড়ী প্রবাসী হারুনুর রশিদের ছেলে ও তেজগাঁও কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্র।

থানা পুলিশ জানান, গত ১৪ মে মজিবুল হক নামের এক ব্যবাসয়ী মিতু আক্তার নামে তার কলেজ পড়ুয়া মেয়ে নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে বাদী হয়ে দিনাজপুরের কতোয়ালী থানায় সাধারন ডায়েরী করেন (যার নং- ৮৭০/১৮)। অনেক খোঁজাখুজির পর গোপন সংবাদ পেয়ে এসআই ময়নাল হোসেন রাখালিয়া বাজারের পাশে হোসেন আলী বেপারী বাড়ী থেকে অভিযুক্ত তানজিন আহম্মেদ শান্তকে গ্রেফতার ও মিতু আক্তারকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। কতোয়ালী থানার পুলিশ ও মিতুর দুই চাচাতো ভাইয়ের কাছে অভিযুক্ত ও উদ্ধার হওয়া ছাত্রীকে তাদের হাতে সোপর্দ করা হয়েছে।

অভিযুক্ত তানজিন আহম্মেদ শান্ত বলেন, ফেসবুকের মাধ্যমে আমাদের পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে ঢাকায় এসে আমরা স্ব-ইচ্ছায়, স্ব-জ্ঞানে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হই। মিতুকে জোর করে নিয়ে আসা হয়নি। মিতু আক্তার বলেন, শান্তর বক্তব্য সঠিক। পরিবার আমাদের সম্পর্ক মেনে নিবে জেনে শান্তর কাছে পালিয়ে এসে বিয়ে করি।

রায়পুর থানার অফিসার ইনচার্জ আজিজুর রহমান মিয়া বলেন, দিনাজপুর থেকে নিখোঁজ হওয়া কলেজছাত্রী মিতু আক্তার উদ্ধার ও অভিযুক্ত তানজিন আহম্মেদ শান্তকে আটক করে কতোয়ালী থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।