সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ বাংলাদেশী নিহত, আহত ১১ (অডিও)

অনলাইন ডেস্ক:  সৌদি আরবের জেদ্দায় সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ছয় বাংলাদেশি নিহত ও ১১ জন আহত হয়েছেন। স্থানীয় সময় বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে কিং আব্দুল আযীয সড়কের সামারি কোর্ট ও রেড সি মলের মধ্যবর্তী এলাকায় মাইক্রোবাস উল্টে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে বলে জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। নিহতদের মধ্যে একজনের বিস্তারিত পরিচয় জানা গেছে। তিনি হলেন- নড়াইল সদর থানার মহিসওলা গ্রামের মোহসিন হোসাইনের ছেলে মো. মনিরুল ইসলাম। নিহত বাকি চারজনের পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে বলে মোস্তফা জামিল খান নামে কনস্যুলেটের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

আহতদের মধ্যে সাতজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন- নড়াইল সদরের রামচন্দ্রপুর গ্রামের ইসারত শেখের ছেলে মো. ইসরাফিল শেখ, একই উপজেলার পরমল্লিক গ্রামের মো. হিরো শেখের ছেলে মো. কবির শেখ, মাগুরা সদরের দুদু য়িার ছেলে মো. ইলাহী, সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার বাগলা গ্রামের শামসুদ্দীনের ছেলে সুজন আহমেদ, হবিগঞ্জের বাহুবলের ফোনারফদা গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থানার সোরগাজি গ্রামের আবুল কালামের ছেলে মো. রুবেল ইসলাম এবং ইমাম হোসেন। এদের মধ্যে ইমাম হোসেন আইসিইউতে ভর্তি বলে কনস্যুলেট জানিয়েছে। ইমামের বাবার নাম আব্দুল জব্বার বলে জানালেও তার বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেনি তারা।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ১৬ জন বাংলাদেশি জেদ্দার গুলাইল থেকে মাইক্রোবাসে করে আভর যাচ্ছিলেন। এর চালক ছিলেন একজন পাকিস্তানি। মাইক্রোবাসটি সামারি কোর্ট ও রেড সি মলের মধ্যবর্তী এলাকার একটি জায়গায় পুলিশের গাড়ির ধাক্কা খেয়ে ফুটপাতে গিয়ে উল্টে যায়। তবে আহত একজনের বরাত দিয়ে মোবারক হোসেন নামে জেদ্দা প্রবাসী একজন বাংলাদেশি বলেন, হতাহতরা সেখানে একটি কারখানায় চাকরি করতেন। সকালে কাজে যাওয়ার সময় তাদের মিনিবাসের চাকা বিস্ফোরিত হলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারান এবং গাড়িটি রাস্তার পাশের একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খায়।